সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০৭:২৯ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশের প্লাস্টিক কোম্পানি গুলোর মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা লিরা ডোর’স গ্রুপ সঠিকভাবে বেতন না দেওয়ার অভিযোগ

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩৯৯ Time View
ইসলামে শ্রমের মর্যাদা অপরিসীম। আল কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, ‘সালাত সমাপ্ত হলে তোমরা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়বে এবং আল্লাহর অনুগ্রহ (জীবিকা) সন্ধান করবে।’ সূরা জুমা, আয়াত ১০। আল্লাহ সূরা বালাদের ৪ নম্বর আয়াতে ইরশাদ করেছেন, ‘নিশ্চয়ই আমি মানুষকে সৃষ্টি করেছি শ্রমনির্ভর করে।’ একজন শ্রমিক তার শ্রম বিক্রি করে জীবিকার প্রত্যাশায়। শ্রমের মূল্য সে যাতে প্রতিশ্রুত সময়ের মধ্যে পায় এমনটিই নিশ্চিত করা হয়েছে ইসলামী বিধানে। এ সম্পর্কে রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নির্দেশ ‘শ্রমিকের ঘাম শুকানোর আগেই তার মজুরি পরিশোধ করতে হবে।’
দেশের পোষাকশিল্প একটি গুরুত্বপূর্ণ শিল্প। এই শিল্পের মাধ্যমে যেমন অসংখ্য নারী-পুরুষের কর্মসংস্থান হচ্ছে তেমনি দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নেও তা গভীর ভূমিকা রাখছে।
কিন্তু বাংলাদেশের প্লাস্টিক কোম্পানি গুলোর মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা লিরা ডোর’স গ্রুপ কি সঠিক নিয়মে শ্রমিকদের বেতন ভাতা দিচ্ছে? হ্যা বেতন প্রতি মাসের ৮-১০ তারিখের মধ্যেই পরিশোধ করে তারা।সমস্যা হচ্ছে একজন শ্রমিক তাদের শ্রমের বিনিময়ে সঠিক ও ন্যায্য মূল্য বা বেতন পাচ্ছে না।একজন সাধারন শ্রমিককে তারা প্রথমে ৮হাজার টাকা বেতনে চাকুরী দিচ্ছে কোন অভিজ্ঞতা ছাড়া।সব কিছুই ঠিক ছিল হাজিরা বোনাস ৫শত টাকাসহ ৬মাস পর পর বেতন বৃদ্ধি শুক্রবার ওভার টাইম।তবে সমস্যা হচ্ছে সারা দুনিয়া যেখানে শ্রমিকদের ৮ ঘন্টা বেসিক বেতন নিকৃষ্ট করেছে সেখানে এই কোম্পানি ১২ ঘন্টায় এই বেতন দিচ্ছে যা কিনা শ্রমিকদের ঠকানোর সামিল বলে ভাবছে ঐ ফ্যাক্টরীর সাধারণ শ্রমিকগন।এছাড়া এখানে ডে-নাইট কাজ করানো হয়।সপ্তাহে পরিবর্তন করে।
লিরা কোম্পানির একজন কর্মকতা জানান,দেশের সকল প্লাস্টিক কোম্পানি গুলো এ নিয়মেই বেতন ভুক্ত করে শ্রমিক নিয়োগ করছে। তবে তো দেখা যাচ্ছে দেশের প্লাস্টিকের কোম্পানি গুলো সাধারন শ্রমিকদের ঠকিয়ে যাচ্ছে বেকারত্বের সুযোগে।সরকারের কি এ নিয়ে কোন খোজ খবর আছে? এমন প্রশ্ন এসব খেটে খাওয়া শ্রমিকদের।
লিরা ডোর’স কোম্পানিতে কোন শ্রমিক দূর্ঘটনা কবলিত হলে কোম্পানি কোন দায় নেয় না বলে জানা যায়। সামান্য আঘাত প্রাপ্ত হলে প্রাথমিক চিকিৎসার কোন ব্যবস্থা নেই এখানে।কিছু দিন আগেও একজনের হাতের আঙুল কেটে গিয়েছিল কোম্পানি তাকে কোন সহযোগিতা করেনি বলে জানা যায়।অবশেষে আঙুল হারানো ব্যক্তি চাকুরী ছেড়ে চলে যায়।এমন ঘটনা আরো আছে।আর ছোট খাটো ঘটনা তো ঘটছে অহরহ।শ্রমিকগনের অভিযোগ উক্ত কোম্পানি মালিক ইকবাল সাহেব হয় তো এসব বিষয়ে অবগত নয়।তিনি জানলে শ্রমিকদের জন্য কিছু অবশ্যই করতেন।তার মন ভাল। সরজমিনে,উক্ত কোম্পানিতে গিয়ে দেখা যায় গেইটে ঝুলছে বিশাল ব্যানারে নিয়োগ বিজ্ঞাপ্তি। সাইদ নামে একজন শ্রমিকের সাথে কথা হলে উল্লিখিত সকল তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায়।তিনি বলেন-এক তো ডে-নাইট ডিউটি তার উপর ১২ঘন্টার কাজ শুক্রবার ছাড়া কোন ওভার টাইম নেই।তবে নাইটে কাজ হলে ৩০ টাকা সমপরিমাণ নাস্তা দেয়া হয়। দেশের প্লাস্টিক কোম্পানি গুলো যেভাবে শ্রমিকদের ঠকাচ্ছে তাতে সরকারের সুদৃষ্টি দেয়া উচিত। ৮ ঘন্টা বেসিক কাজের পর বাকি সময়টা ওভার টাইম কিংবা ১২ ঘন্টা কাজ করিয়ে ন্যায্য মূল্য পরিশোধ করলেই শ্রমিকগন খুশী মনে কাজ করতে পারে।কারন বর্তমান দেশের পরিস্থিতিতে ৮হাজার টাকায় একটি পরিবার চলা দুস্কর।
সহীহ বুখারীতে হযরত আবু হুরায়রা রা.-এর সূত্রে এই হাদীসে কুদসী বর্ণিত হয়েছে যে, আল্লাহ্ র রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন- আল্লাহ তাআলা বলেছেন, কিয়ামতের দিন আমি নিজে তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে দাঁড়াব : এক. ঐ ব্যক্তি যে আমার নামে অঙ্গিকার করে তা ভঙ্গ করেছে। দুই. যে কোনো স্বাধীন ব্যক্তিকে বিক্রি করে সেই মূল্য ভক্ষণ করেছে। আর তিন. যে কোনো মজদুরের শ্রম পুরোপুরি গ্রহণ করে তাকে তার মজুরি থেকে বঞ্চিত করেছে। -সহীহ বুখারী, হাদীস ২২২৭

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design & Develop BY Our BD It
© All rights reserved © 2020 adibanglanewsbd
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102